প্রেগন্যান্সির সময় ত্বকে সমস্যা ? কম সময়ে মোকাবিলা করুন আয়ুর্বেদিক উপায়ে–

প্রেগন্যান্সির সময় ত্বকে নানারকম সমস্যা দেখা দিতে পারে! কসমেটিক প্রডাক্ট ব্যবহার না করে আয়ুর্বেদিকের উপর ভরসা রাখুন। প্রেগন্যান্সির সময় মানসিক পরিবর্তনের পাশাপাশি, শারীরিক গঠনেও পরিবর্তন হয়… মহিলারা নিজেদের জীবনের এক অন্য অভিজ্ঞতা উপভোগ করলেও একাধিক সমস্যার মধ্যেও থাকেন।

হরমোনের পরিবর্তনের ফলে একদিকে মানসিক অবসাদ, অ্যাংজাইটি, খিটেখিটে মেজাজ, অন্যদিকে দেখা দেয় ত্বকের একাধিক সমস্যা যেমন– ত্বকের উজ্জ্বলতা কমে যায়, র‍্যাশ, ব্রনর সমস্যা, ডার্ক সার্কেল বা ত্বকে জ্বালাভাবও দেখা দিতে পারে। প্রেগন্যান্সির সময় ত্বক ভাল রাখতে কসমেটিক প্রডাক্ট ব্যবহার না করে বেছে নিন আয়ুর্বেদিক পদ্ধতি

আয়ুর্বেদিক মাসাজ (Ayurvedic Massage)– আয়ুর্বেদিক থেরাপির অন্যতম জনপ্রিয় আয়ুর্বেদিক মাসাজ। এটি ত্বক ময়শ্চারাইজ করে, রক্ত চলাচল ঠিক রাখে ফলে ত্বকের একাধিক সমস্য দূর হয়। ত্বক শুকনো-খসখসে হয়ে গেলে এই মাসাজ ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ফিরিয়ে আনে

আয়ুর্বেদিক ডায়েট (Ayurvedic Diet)– আয়ুর্বেদিক ডায়েটের মধ্যে Vata Pacifying ডায়েট প্রেগন্যান্সির সময় কাজে দেয়। এই ধরনের ডায়েটে সাধারণত, ভাত, দুধ, ভেজিটেবল স্যুপ, রসুন, ঘি ইত্যাদি থাকে যা ত্বক ভাল রাখতে সাহায্য করে।

হার্বাল সাপ্লিমেন্টস (Herbal Supplements)– প্রেগন্যান্সির সময়ে এবং তার পরে নানা আয়ুর্বেদিক সাপ্লিমেন্ট শরীর ভাল রাখে। এ ক্ষেত্রে খেতে পারেন কেশর, অশ্বগন্ধা, শতাভরী, ভিদারী, বালা, জটামাংসীর মতো ভেষজ।

এ’সবের পাশাপাশি বিশ্রাম নিতে হবে এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমতে হবে। প্রেগনেন্সির সময় এমনিতেই সারা দিন ক্লান্তিভাব, ঘুম-ঘুম ভাব আসে। এই সময়ে তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম খুব জরুরি। এতে হজম ভাল হয় এবং চোখের তলায় কালি পড়ার সম্ভাবনা থাকে না। পাশাপাশি হাসি-খুশি থাকার কথাও বলেন চিকিৎসকেরা, এতেও কিন্তু ত্বক ভাল থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *