ব্রাজিলকে রুখে দেওয়া দলকে ৫ গোল দিয়ে সেমিফাইনালে স্পেন (ভিডিও)

এবারের টোকিও অলিম্পিকে দুর্দান্ত খেলছে স্পেন। ব্রাজিল, জাপানকে রেখে অনেকে স্প্যানিশদেরই স্বর্ণ জয়ের প্রথম দাবিদার মানছেন।

গ্রুপপর্বে শক্তিশালী আর্জেন্টিনাকে রুখে দিয়ে দাবি জোরালো করেছে উনাই সিমনের দল।

এবার কোয়ার্টার ফাইনালে সেই দাবিকে একেবারে ফ্রেমে বাঁধাই করে রাখার যেন ইঙ্গিত দিল স্পেন।

গ্রুপপর্বে ব্রাজিলকে রুখে দিয়েছিল আইভরি কোস্ট। আগের ম্যাচে জার্মানির জালে ৪ গোল জড়ানো ব্রাজিল আফ্রিকার এই দেশের বিপক্ষে কোনো গোলই দিতে পারেনি।

আর সেই আইভরি কোস্টের জালে ৫ বার বল জড়িয়েছে স্পেন। আইভরি কোস্ট শোধ দিতে পেরেছে দুটি।

শেষ আটের লড়াইয়ে শনিবার আইভরি কোস্টের মুখোমুখি হয় স্পেন।

৫-২ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছে স্পেন।

অদ্ভূত এক ম্যাচ উপভোগ করেছেন ফুটবলবিশ্ব। নির্ধারিত সময়ে ২-২ গোলে অমিমাংসিত ছিল খেলা। পরে অতিরিক্ত সময়ে আইভরি কোস্টের জালে একে একে তিন গোল জমা করে স্পেন। ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছেন বদলি হিসেবে নামা রাফা মীর।

তার হ্যাটট্রিকে গোটের ম্যাচের চিত্র পাল্টে যায়।

ম্যাচের শুরুর ১০ মিনিটের সময় এরিক বেইলি গোলে লিড নেয় আইভরি। ৩০ মিনিটের মাথায় স্পেনকে সমতায় ফেরান দানি আলমো। ১-১ সমতায় বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতীয়ার্ধের ৪৫ মিনিট ধরে তুমুল লড়াইয়ের জালের দেখা পায়নি কোনো দল। কিন্তু অতিরিক্ত সময়ে ভেলকি দেখান আইভরিকোস্টের তারকা ম্যাক্স গ্রাডেল।

ভাবা হচ্ছিল, অলিম্পিক থেকে বিদায় ঘণ্টা বাজছে স্পেনের। কিন্তু ফের নাটক জমে ওঠে। গ্রাডেলের গোলের দুই মিনিট পরই সমতায় ফিরিয়ে স্কোর ২-২ করেন স্পেনের রাফা মীর।

নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে।

অতিরিক্ত সময়ে ৯৮ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি পায় স্পেন। সফল স্পটকিক থেকে গোল করে ব্যবধান ৩-২ করেন মিকেল ওয়ারজাবাল।

আইভরি ফের সমতায় ফেরাবে আশায় বুক বাধে দলটির সমর্থকরা। কিন্তু উল্টোটাই ঘটে। অতিরিক্ত সময়ের শেষদিকে ১১৭ মিনিটে নিজের জোড়া গোল পূরণ করেন রাফা মীর। এর চার মিনিট পরেই হ্যাটট্রিক গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন এই স্প্যানিশ তারকা।

রেফারির শেষ বাঁশিতে ৫-২ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে সেমির টিকিট কাটে স্পেন। অপরদিকে দারুণ খেলেও কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় জানাতে হয়েছে আইভরি কোস্টকে।

ম্যাচ হাইলাইটস দেখুন –

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *